গান শুনুন, তবে দিনে এক ঘণ্টার বেশি নয়

গান শুনুন, তবে দিনে এক ঘণ্টার বেশি নয়
পড়া যাবে: < 1 minute

নিজের শ্রবণশক্তি ঠিক রাখতে চান? তা হলে দিনে এক ঘণ্টার বেশি মিউজিক বা গান শোনা চলবে না। কারণ দিনে এক ঘণ্টার বেশি গান শুনলে আপনার শ্রবণশক্তির মারাত্মক ক্ষতি হতে পারে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) এ কথা জানিয়েছে।

বেশি সময় ধরে গান শোনা এবং উচ্চ শব্দে গান শোনার কারণে সারাবিশ্বে ১১০ কোটি টিনএজার এবং তরুণ প্রাপ্তবয়স্ক চিরদিনের মতো শ্রবণশক্তি হারানোর ঝুঁকিতে  রয়েছেন বলে ডব্লিউএইচও জানিয়েছে। সিডি প্লেয়ার,  কনসার্ট এবং বার-এ যে  বিকট শব্দে গান শোনা তা শরীরের জন্য ‘মারাত্মক হুমকি’ বলে জানিয়েছে জাতিসংঘের এ সংস্থাটি।

আরও পড়ুন:  এইডস কি? জেনে নিন কিভাবে এইডস থেকে নিজেকে মুক্ত রাখবেন!

ডব্লিউএইচও’র হিসাবে ১২ থেকে ৩৫ বছর বয়সী চার কোটি ৩০ লাখ মানুষ এরই মধ্যে শ্রবণশক্তি হারিয়েছেন এবং এ সংখ্যা ভবিষ্যতে আরো বাড়ার আশঙ্কা রয়েছে। ডব্লিউএইচও বলছে, ধনী ও মধ্যম আয়ের দেশগুলো ১২ থেকে ৩৫ বছর বয়সীদের অর্ধেকই নিজেদের সিডি প্লেয়ারে মাত্রাতিরিক্ত জোরে গান শুনে থাকেন। ডব্লিউএইচও’র ইনজুরি প্রিভেনশন বিষয়ক পরিচালক ড. এটিইন ক্রুগ বলেন, আমরা এ ব্যাপারে সচেতনতা বাড়ানোর চেষ্টা করছি।

বাংলা হেলথ কেয়ার /এসপি

  • 6
    Shares