প্রচ্ছদ ঔষুধ

সকালে ওষুধ খেতে হলে মেনে চলুন কিছু সাধারণ নিয়ম

197
সকালে ওষুধ খেতে হলে মেনে চলুন কিছু সাধারণ নিয়ম

অনেকেই আছেন আমাদের মাঝে, যাদের কিনা সকাল সকাল খেতে হয় নানান রকম ওষুধ। এখন রোগ বালাই থাকলে ওষুধ তো খেতেই হবে, নাহলে সুস্থতা আসবে কি করে? ডায়াবেটিকস, হৃদরোগ ইত্যাদি ধরনের অসুখে তো দীর্ঘমেয়াদি সম্পর্ক তৈরি হয়ে যায় ওষুধের সাথে।

আর তাই সেক্ষেত্রে মেনে চলা উচিত কিছু অতি গুরুত্বপূর্ণ কিছু নিয়ম। তবে কেবল দীর্ঘমেয়াদি অসুখে নয়, সাধারণ স্বল্প মেয়াদী চিকিৎসার জন্যও যদি সকাল সকাল ওষুধ খেতে হয়, তাহলে মেনে চলার চেষ্টা করুন কিছু সাধারণ নিয়মাবলী

  • সকালে ওষুধ খেতে হলে অবশ্যই খালি পেটে খাবেন না। অবশ্যই এবং অতি অবশ্যই প্রথমে কিছু খাবার গ্রহণ করুন। এবং তারপরেই ওষুধ।
  • খালি পেটে ওষুধ সেবন থেকে গ্যাসট্রিক সহ পাকস্থলী ফুটো হওয়ার মতন ভয়াবহ সমস্যা হতে পারে।সাধারণত ওষুধ হাবার নিয়ম যখন আপনি ক্ষুধার্ত বোধ করবেন তখন। যেমন খাদ্য গ্রহণের এক ঘণ্টা আগে বা ২ ঘণ্টা পরে। তবে বিশেষ কোনও নিয়ম থাকলে সেটা অবশ্যই ডাক্তারের পরামর্ষ অনুযায়ী গ্রহণ করুন।
  • ওষুধ খাবার সময় হাল্কা কুসুম গরম পানি ব্যবহার করুন। তাতে দ্রুত ওষুধের কার্যকারিতা শুরু হয়।
  • যারা অ্যালার্জি বা রক্তে চর্বির পরিমাপ কমাবার ওষুধ খান, তারা ওষুধের সাথে বা পরে ফলের রস খাবেন না। অন্তত ২ ঘণ্টা পরে খান খেতে হলে। বিশেষ করে আঙ্গুর, কমলা, লেবুর সরবত খাওয়া থেকে বিরত থাকুন।
  • যারা অ্যানটিবায়টিক জাতীয় ওষুধ সেবন করছেন তারা দুধ ও দুধ জাতীয় খাবার গ্রহণ করুন সীমিত পরিমাণে। দুধে আছে ক্যালসিয়াম, যারা বিক্রিয়া করে ওষুধের সাথে এবং অদ্রবণীয় লবণ তৈরি করে। অর্থাৎ অনেকটা ওষুধই আপনার কাজে লাগে না।
  • ওষুধ খাবার আগে খেয়ে নিন। এবং ওষুধ খাবার পরে অন্তত ৩০ মিনিট কিছু খাওয়া থেকে বিরত থাকলেই ভালো। পাকস্থলীতে বেশি চাপ না দিয়ে ওষুধকে কাজ শুরু করবার সুযোগ দিন।
  • ওষুধ খাবার আগে বা পরে খুব টক কিছু না খাওয়াই ভালো।
  • সকালে ঘুম থেকে উঠেই তাড়াহুড়া করে ওষুধ খেতে যাবেন না। নিজেকে সময় দিন, শরীরকে সময় দিন তৈরি হতে। এই ফাঁকে নাশতা সেরে নিন। তারপরেই ওষুধ খান।
  • অনেকেই সকালে গরম পানির সাথে মধু বা রঙ চা ইত্যাদি খেয়ে থাকেন খালি পেটে। তারপরে ওষুধ খেতে চাইলে আগে সলিড কিছু খেয়ে তবেই খাবেন
  • অনেক ওষুধের ক্ষেত্রে বলা হয় নাশতা খাবার আধ ঘণ্টা বা এক ঘণ্টা আগে খেতে। সেক্ষেত্রে ডাক্তারের নিয়ম মেনেই খান।
  • সকাল সকাল বিভিন্ন সিরাপ খেতে খুব খারাপ লাগতে পারে। সেক্ষেত্রে জুসের সাথে মিশিয়ে খেতে পারেন।
  • সকাল বেলা তেতো ওষুধ খেতে অন্য সময়ের চাইতে বেশি খারাপ লাগে। হাতের কাছে মিষ্টি কিছু রাখতে পারেন।
  • সকাল সকাল ওষুধ খাবার পর অনেকেরই বমি ভাব হয়। ব্যাপারটা যতটা না শারীরিক, তার চাইতে অনেক বেশি মানসিক। তবুও বেশি খারাপ লাগলে একটা লজেন্স বা এলাচ/ লবঙ্গের দানা মুখে দিতে পারেন।
  • সকালের ওষুধটা কখনও দেরি করে খাবেন না। চেষ্টা করবেন সঠিক সময়ে খাবার। ওষুধ সঠিক সময়ে না খেলে কার্যকারিতা হ্রাস পায়।
  • ট্যাবলেট বা ক্যাপসুল জাতীয় ওষুধ ফলের রসের বদলে পানি দিয়ে খাবার অভ্যাস করুন।
  • যারা আয়রন পিল সেবন করছেন, তারা বিরত থাকুন চা পান হতে।
Loading Facebook Comments ...