দৈনিক খবর

নারীর সঙ্গে জোরপূর্বক দৈহিক মিলন: বাধ্যতামূলক অবসরে উপসচিব রেজাউল করিম

ক্ষমতায় আসার পর থেকেই দুর্নীতি-অনিয়মে জিরো টলারেন্স নীতিতে রীতিমতো এগিয়ে যাচ্ছে বর্তমান ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ সরকার। আর এরই আলোকে অনিয়ম যেই করুক না কেন, ছাড় দেয়া হচ্ছে না কাউকেই। সেই ধারাবাহিকতায় এবার নারী’র স’ঙ্গে জো”র’পূ”র্বক’ দৈ’হি”ক মি”ল”নে’র অভিযোগে সাময়িক বরখাস্তকৃত উপসচিব এ কে এম রেজাউল করিমকে বাধ্যতামূলক অবসরে পাঠিয়েছে সরকার।

সোমবার (২১ নভেম্বর) জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মেজবাহ উদ্দিন চৌধুরী স্বাক্ষরিত এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়।

”ধ”’র্ষ”’ণ” মা’ম’লা’য় বরখাস্ত থাকা অবস্থায় উপসচিব এ কে এম রেজাউল করিমকে গ্রেপ্তারও করা হয়। বিভাগীয় মামলায় দোষী সাব্যস্ত হয়ে চাকরি হারান তিনি।

তবে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের বিভাগীয় মামলায় ‘অসদাচরণের’ অভিযোগে উপসচিবকে বাধ্যতামূলক অবসরে পাঠানোর কারণ দেখানো হয়েছে।

জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় এক প্রজ্ঞাপনে জানিয়েছে, রেজাউল করিমকে ব্যক্তিগত শুনানি এবং তার বিরুদ্ধে উত্থাপিত অভিযোগের লিখিত জবাব দেওয়ার সুযোগ দেওয়া হয়েছে। পরে আসামির জবাব সন্তোষজনক না হওয়ায় রেজাউল করিমকে সরকারি চাকরি থেকে বাধ্যতামূলক অবসরের সুপারিশ করেন তদন্তকারী কর্মকর্তা। পরে রাষ্ট্রপতি রেজাউল করিমের বিরুদ্ধে সাজা মঞ্জুর করেন।

তবে এর আগেই পুলিশের বেশ কয়েজন কর্মকর্তাকে বাধ্যতামূলক অবসরে পাঠিয়েছে সরকার। যদিও এর সঠিক কারণ এখনো জানা যায়নি।

Related Articles

Back to top button