প্রচ্ছদ জেনে রাখুন

চকলেট দূর করে যে ৮টি শারীরিক সমস্যা

142
চকলেট দূর করে যে ৮টি শারীরিক সমস্যা

চকলেট খেতে ছোট – বড় সকলেই ভালোবাসেন। আবার কেউ কেউ ভেবে থাকেন যে স্বাস্থ্যের জন্যে খুব একটা ভালো নয়। ফলে ডায়াবেটিস সমস্যা দেখা দিতে পারে। এটা একটি ভুল ধারণা তবে বিজ্ঞানীদের গবেষণায় উঠে এসেছে চকলেটের নানা উপকারী দিকগুলো।

Loading...

তাহলে আসুন জেনে নিন চকলেট দূর করে যে ৮টি শারীরিক সমস্যাগুলো

১. স্ট্রোকের ঝুঁকি কমায়

সুইডেনের একটি গবেষণা অনুসারে, সপ্তাহে গড়ে ৪৫ গ্রাম চকলেট ২০ শতাংশ পর্যন্ত আপনার স্ট্রোকের ঝুঁকি কমায়। চকলেটে থাকা ফ্লেভোনয়েড নামক এন্টি অক্সিডেন্ট স্ট্রোকের বিরুদ্ধে লড়াই করতে সাহায্য করে।

২. হার্ট অ্যাটাকের ঝুঁকি কমায়

এটা রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে ভূমিকা রাখে, রক্তের প্লেটলেটের কাজ অনেক সহজে দেহে ঘটে চকলেট গ্রহণকারীদের ক্ষেত্রে। এভাবে হার্ট অ্যাটাকের ঝুঁকি কমে যায়।

৩. ত্বক রক্ষার ক্ষেত্রে

জার্মান বিজ্ঞানীদের মতে ডার্ক চকলেটে থাকা Flavonoids ত্বককে সূর্যের ক্ষতিকর বেগুনী রশ্মি থেকে রক্ষা করার এন্টিবডি তৈরি করে। তবে সানস্ক্রীনও ব্যবহার জরুরী।

৪. কাশির উপশমে

কাশির উপশমে আদা, লবঙ্গ, চা, কিছুই তো ট্রাই করলেন কিন্তু সবচেয়ে সুস্বাদু উপায়টি হল চকলেট। চকলেটে থাকা উপাদান থিওব্রোমিন মস্তিস্কের thevagus নামক নার্ভটিঢ় কাজকে নিয়ন্রণ করতে পারে কিছুটা। এই নার্ভটির কাশির সঙ্কেত পাঠায়।

৫. আয়ু বাড়ায়

চকলেট আপনার আয়ু দু বছর পর্যন্ত বাড়াতে পারে। পৃথিবীর সবচেয়ে দীর্ঘায়ূ ব্যাক্তি Jeanne Louise Calment মারা যান ১২২ বছর বয়েসে। তিনি রোজ আড়াই পাউন্ড করে ডার্ক চকলেট খেতেন।

৬. ক্যান্সার প্রতিরোধে

চকলেটে ব্যবহৃত উপাদান কোকোয়াতে থাকে pentameric procyanidin নামে একটি দারুণ উপকারী উপাদান। যা ক্যান্সার আক্রান্ত কোষগুলোকে ছড়িয়ে পড়তে বাধা দেয়। ২০০৫ সালে জর্জটাউন ইউনিভার্সিটির লোম্বার্ডি কম্প্রিহেনসিভ ক্যান্সার সেন্টার এর একটি গবেষণায় দেখা যায়, pentameric procyanidin ক্যান্সারের কোষগুলোকে বিভক্ত হতে বাধা দিচ্ছে।

৭. ডায়াবেটিস প্রতিরোধে

University of L’Aquila এর একটি গবেষণায় দেখা যায়, নিয়মিত চকলেট গ্রহনের ফলে তা দেহে ইনসুলিনের সংবেদনশীলতা বাড়ায়। এর ফলে ডায়াবেটিসের ঝুঁকি কমে।

৮. মস্তিস্কের জন্যে উপকারী

চকলেট মস্তিস্কে রক্তচলাচলে সহায়তা করে। এর ফলে আপনার মস্তিস্কের কার্যাবলী অত্যন্ত সঠিক ও সুন্দরভাবে নিয়ন্ত্রিত হওয়। বলা চলে, চকলেট খাওয়া আর ব্রেইনে রক্ত সরবরাহ করা একই কথা। আর মস্তিস্ক যত সচল থাকবে আপনিও ততটাই সতেজ থাকবেন।

চকলেটের উপকারিতা আছে এটা সত্যি। কিন্তু তাই বলে চকলেটের প্রতি আসক্ত হয়ে যাবেন না যেন! নিয়মিত কিন্তু অল্প পরিমানে চকলেট খান। তবে চিনি বিহীন বা অল্প চিনির ডার্ক চকলেট। সুস্থ থাকুন।

Loading...
Loading Facebook Comments ...