প্রচ্ছদ চুলের যত্ন

উকুন দূর করে দিন ৫টি নিরাপদ ঘরোয়া উপায়ে

52
উকুন দূর করে দিন ৫টি নিরাপদ ঘরোয়া উপায়ে

উকুন – এমন এক ঘৃণ্য পরজীবী যা আপনার চুলের বারোটা বাজাতে পারে! সেই সাথে ক্ষতি করতে পারে আপনার ব্যক্তিত্বেরও। ভাবুন তো, লোকজনের সামনে মাথা খসখস করে চুলকাচ্ছেন অথবা কাঁধ বেয়ে পোশাকে নেমে এলো একটা মোটাতাজা উকুন – ভয়াবহ ব্যাপার, তাই না?

এই ভয়াবহ ব্যাপারগুলো যাতে না ঘটে তার জন্যই এই টিপস। জেনে ঘরোয়াভাবে মাথা থেকে উকুন দূর করে দেবার কয়েকটি উপায়। আর এগুলো চুলের জন্য একেবারেই নিরাপদ।

১. মেয়নিজ পুরো চুল ও মাথার ত্বকে লাগান। মাথা ভালো করে মাসাজ করুন। ২ ঘণ্টা পর চিকন দাঁতের চিরুনি দিয়ে চুল আঁচড়ে ফেলুন। নিকি ও উকুন মরে যাবে।

২. শিশুদের চুলে উকুন হলে অ্যান্টি-লাইস শ্যাম্পু ব্যবহার করুন। শ্যাম্পুর সাথে ১০-১৫ ফোঁটা টি-ট্রি অয়েল মিশিয়ে নিয়ে ব্যবহার করুন। ভিনেগায দিয়ে চুল ধুতে পারেন। এতে ২-৩ দিনে চুল থেকে উকুনের ডিমগুলো ঝরে পড়বে।

৩. লেবুর রস ও মাখন ভালো করে মিশিয়ে মাথায় লাগান। ১০ মিনিট অপেক্ষা করে চুল শ্যাম্পু করে ধুয়ে ফেলুন। একদিন পর পর এই কাজ করুন।

৪. নিম শ্যাম্পু ও কন্ডিশনার দিয়ে চুল ধুয়ে ১৫ মিনিট ধরে চুল ব্লো ড্রাই করুন বেশ উঁচু তাপমাত্রায়। ২ দিন ও ৭ দিন পর আবার এরকম ভাবে চুল পরিষ্কার করুন।

শ্যাম্পুর পর চুলে অন্তত মিনিট পাঁচেক কন্ডিশনার লাগিয়ে রাখবেন। বাতাস চলাচল না করতে পারলে উকুন মরে যাবে। একই উপকার পাবেন সারাদিন মাথায় তেল মেখে থাকলে। অলিভ অয়েল এ ক্ষেত্রে ভালো কাজ করে।

৫. অ্যাপেল সিডার ভিনেগার, অলিভ অয়েল ও রসুন বাটা মিশিয়ে মাথায় লাগিয়ে ২ ঘণ্টা। তারপর চুল ধুয়ে, শুকিয়ে সাদা ভিনেগার স্প্রে করুন চুলে। এরপর চিকন দাঁতের চিরুনি দিয়ে চুল আঁচড়ান।

আর যদি কেমিক্যাল ব্যবহার করতেই হয়, তাহলে ডগ ফ্লি ও পারমিথ্রিন দেয়া শ্যাম্পু ব্যবহার করতে পারেন। পারমিথ্রিন, গামাবেনজিন, হেক্সাক্লোরাইড ইত্যাদি ওষুধ ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী মাথায় কিছুক্ষণ রেখে মাথা ধুয়ে ফেলতে হবে।