আপনার শিশুর চুল বৃদ্ধির জন্য যেনে নিন সহজ ১০ টি টিপস

আপনার শিশুর চুল বৃদ্ধির জন্য যেনে নিন সহজ ১০ টি টিপস
পড়া যাবে: 3 মিনিটে

প্রত্যেক বাবা মার কাছে তার সন্তান পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ উপহার। অনেক আদর যত্নে প্রত্যেক বাবা মা তার সন্তানকে মানুষ করে।  শিশু এবং বাচ্চারা আমাদের কাছে নিঃসন্দেহে ছোট্ট দেবদূতের মতো হয়, যাদের আমাদের কাছে উপহার দেওয়া হয়। তারা কিভাবে উপস্থিত হয় সেটা গুরুত্বপূর্ণ না, তারা নিশ্চিতভাবে আরাধ্য মিষ্টি চেহারার হয়। কিন্তু একজন বাবা-মা হিসাবে, আপনি আপনার সন্তানের মাথার অল্প চুলই একমাত্র জিনিস, যা আপনার আরাধ্য শিশুর সম্পূর্ণ ছবির মধ্যে অভাববোধ অনুভব করায়।

এই কারণে এই নিবন্ধে, আমরা আপনার সন্তানেকে সুন্দর চুল পেতে সাহায্য করার জন্য কিছু টিপস বর্ণনা করেছি। তবে, এই টিপস ৬ মাস বা তার বেশি বয়সের শিশুদের জন্য ভালো, বলে পরামর্শ দেওয়া হয়। আপনার সন্তান যদি ছোট হয়, তবে সম্ভবত এই টিপস ব্যবহার করা আপনার পক্ষে সঠিক সময় নয়।

কিভাবে আপনার শিশুর চুল দ্রুত বৃদ্ধি পাবে?
আপনার সন্তানের কম চুলের সমস্যার দিকে অগ্রসর হওয়ার বিভিন্ন উপায় রয়েছে, এর মধ্যে কয়েকটি নিচে দেওয়া হল।

১) ভিটামিন ডি

গবেষণায় দেখানো হয়েছে যে, ভিটামিন ডি ভাল চুলের বৃদ্ধিতে সহায়তা করে এবং এটিকে চুলের যত্নের অনেক পণ্যে ব্যবহার করা হয়।

২) একটি ক্রাডেল ক্যাপ ব্যবহার করুন

বেশিরভাগ সময় বাবা-মা যখন তাদের শিশুর মাথার পিছনে একটি টাকের প্যাচ দেখেন, তখন তারা চিন্তিত হন। কখনও কখনও, এটি একটি ভিন্ন রং-এরও হতে পারে, যাতে এটিকে একটি সংক্রমণ বলে আপনার মনে হতে পারে। কিন্তু এটির একটি সাধারণ কারণ আছে। যখন আপনি আপনার সন্তানকে তার ক্রাডেলে শুইয়ে দেন, তখন তার মাথার পিছনের অংশটি বিছানায় ঘষা খেতে পারে এবং এর ফলে চুল পড়ে যায়। কিন্তু আপনি শিশুকে নিচে রাখার আগে আপনার শিশুর মাথার উপরে একটি টুপি ব্যবহার করে এটি সহজেই এড়াতে পারেন।

৩) আমন্ড বাদাম

আমন্ড বাদাম প্রোটিন এবং অপরিহার্য অ্যামিনো অ্যাসিডের একটি মহান উৎস। চুলের বৃদ্ধি বাড়ানোর জন্য প্রতিদিন আপনার বাচ্চা ২-৩টি আমন্ড বাদাম দেওয়ার চেষ্টা করুন।

আরও পড়ুন:  চশমা ছাড়াই স্পষ্ট দেখতে মেনে চলুন এই নিয়মগুলো

৪) লোহা বা আয়রন

আয়রন আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ পুষ্টি, যা চুলের বৃদ্ধিকে বাড়াতে সহায়তা করে। এটির সাহায্যে অসঙ্গতির কারণে চুল ভঙ্গুর হয়ে ভেঙে যাওয়া এড়ানো যায়। আপনার সন্তানের খাবারে লোহার সমৃদ্ধ উপাদানগুলি যেমন সবুজ শাক সবজি, মটরশুটি, কুমড়ো এবং আরও অনেক কিছু অন্তর্ভুক্ত করুন।

৫) চিরুনি দিয়ে আঁচড়ানো

আপনার সন্তানের স্কাল্পের উপর আস্তে আস্তে একটি চিরুনি চালান, এতে চুল বৃদ্ধির উন্নতি করতে সাহায্য করতে পারেন। এটি স্কাল্পে রক্ত সঞ্চালন উন্নতও করতে পারে। আপনি চুল কাটে সেটাকে ঘন দেখাতে পারেন। যাইহোক, চুল কাটা বা ন্যাড়া করা চুলের বৃদ্ধির প্রতিশ্রুতি দেয় না। চুল কাটার শুধুমাত্র চুলকে ঘন দেখতে করে এবং সুদৃশ্য চেহারা দিতে সাহায্য করতে পারে।

৬) চুল পরিষ্কার রাখুন

ময়লা জমা কমানোর জন্য এবং পরিষ্কার রাখার জন্য প্রতি ২-৩ দিনের অন্তর একবার শ্যাম্পু দিয়ে আপনার সন্তানের চুল ধোয়া ভালো। আপনার সন্তানের অস্বস্তি বোধ না হওয়ার জন্য, সর্বদা হালকা উষ্ণ জল ব্যবহার করুন, খুব গরম বা খুব ঠান্ডা যেন না হয়।

৭) চুলে তেল দেওয়া

চুলে তেল দেওয়া এবং মালিশ করা রক্ত সঞ্চালন সক্রিয় রাখে এবং চুলের সুস্থ বৃদ্ধির জন্য প্রয়োজনীয় আর্দ্রতা সরবরাহ করতে পারে। আপনি ভালো ফলের জন্য বিশুদ্ধ এবং জৈব নারকেল তেল ব্যবহার করতে পারেন। বাদাম খাওয়ানোর পাশাপাশি, আপনি পুষ্টি সরবরাহ করতে এবং রক্ত সঞ্চালনের উন্নতির জন্য আপনার সন্তানের স্কাল্পের উপর বাদাম তেল মালিশ করতে পারেন।

৮) কন্ডিশনার ব্যবহার করুন

আপনার সন্তানের চুল খুব কোঁকড়ানো এবং আগোছাল হলে আপনি একটি কন্ডিশনার ব্যবহার করতে পারেন। একটি শিশু-বান্ধব কন্ডিশনার কেবল চুলকে সহজে পরিচালনা করতে সহায়তা করে না, তবে স্কাল্পের জন্য প্রয়োজনীয় পুষ্টি সরবরাহ করতে পারে। এটা জট অপসারণ করতে সাহায্য করে। ডিম, হিবস্কাস এবং দইয়ের মত কিছু প্রাকৃতিক কন্ডিশনার চেষ্টা করাও ভালো। এগুলিতে কোন ক্ষতিকারক রাসায়নিক নেই, যা শিশুর ক্ষতি করতে পারে।

আরও পড়ুন:  খালি পায়ে ঘাসের ওপরে হাঁটার কিছু স্বাস্থ্য উপকারিতা

৯) ঘৃতকুমারী বা অ্যালোভেরা

সবাই জানে যে, অ্যালোভেরা ত্বকের জন্য বিস্ময়কর কাজ করে, কিন্তু চুলের বৃদ্ধির ক্ষেত্রে এটি ব্যাপকভাবে সাহায্য করতে পারে। আপনি আপনার সন্তানের স্কাল্পে সরাসরি অ্যালোভেরা জুস প্রয়োগ করতে পারেন অথবা এর ফল পেতে শ্যাম্পু বা কন্ডিশনারের সাথে মেশাতে পারেন।

১০) বিভিন্ন পণ্য ব্যবহারের চেষ্টা করুন

চুল বিভিন্ন আকার এবং প্রকারের হয়। একটি শ্যাম্পু এবং কন্ডিশনার কোঁকড়ানো চুলের জন্য উপযুক্ত হলেও, এটি সোজা চুলের জন্য উপযুক্ত নাও হতে পারে। বিনা দ্বিধায় পরীক্ষা করে দেখুন এবং এমন একটি পণ্য খুঁজে বের করুন যা আপনার শিশুর চুলের জন্য পুরোপুরি উপযুক্ত। বিভিন্ন শ্যাম্পু এবং কন্ডিশনারের অল্প পরিমাণ নিয় চেষ্টা করুন এবং সপ্তাহে একবার চেষ্টা করুন। আপনি অবশেষে আপনার সন্তানের জ্য সবচেয়ে ভালটি জানতে পারবেন।

বিবিধ টিপস
কিছু অন্যান্য অতিরিক্ত টিপস নিচে রইল:

আপনি যদি আপনার সন্তানের চুল বাঁধার সিদ্ধান্ত নেন, তবে নিশ্চিত করুন যে আপনি তাদের আলগাভাবে বাঁধুন। আঁটসাঁট পনি এবং বিনুনি চুলের গোঁড়ার ক্ষতি করে এবং চুল পড়তে পারে।

আপনার সন্তান হাইড্রেটেড থাকা নিশ্চিত করতে যথেষ্ট জল পান করান। আপনি দিন একবার ফলের রস অন্তর্ভুক্ত করতে পারেন।

আপনার সন্তানের চুল যত্ন নিতে অন্যান্য ঘরোয়া প্রতিকারের জন্য সন্ধান করুন।

প্রতিটি শিশু অনন্য এবং ভিন্ন। একইভাবে, তাদের চুলে আপনি যে কৌশলটি ব্যবহার করেন তার প্রতিক্রিয়া করার বিভিন্ন চাহিদা এবং বিভিন্ন উপায় রয়েছে। তাই যদি আপনি ভালো ফলাফল না পান, সেটি

আর ব্যবহার করবেন না এবং আপনার সন্তানের খাবারের মধ্যে পরিবর্তন করুন। ধৈর্য ধরুন এবং ধীড়ে ধীরে চেষ্টা করুন, আপনি অবশেষে ফলাফল পেতে সক্ষম হবেন।

তথ্যসূত্রঃ Banglaparenting

বাংলা হেলথ কেয়ার /এসপি

  • 1
    Share